বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০১৯   |  ৫ বৈশাখ ১৪২৬   |   ১১ সাবান, ১৪৪০
Untitled Document

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে উৎসব আমেজে বর্ষবরণ

প্রকাশঃ রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০১৯    ১৫:৫৫
রাবি প্রতিবেদক

উৎসব আর আমেজে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ে (রাবি) বর্ষবরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার সকাল থেকেই নানা রঙ-ঢঙে, বাহারি রকম পোশাক পড়ে নববর্ষকে স্বাগত জানাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ একের পর এক বিভিন্ন আয়োজন করতে থাকে। নববর্ষকে বরণ করতে ভিন্ন ভিন্ন আয়োজন ক্যম্পাসে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, সকাল থেকেই ক্যাম্পাসে বিভিন্ন বিভাগ, সেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলো শোভাযাত্রা বের করে। এসব শোভাযাত্রায় দেখা যায়, বরের গায়ে পাঞ্জাবি, পরনে লুঙ্গি, মাথায় গামছা। অপরপক্ষে নতুন বউ লাল রঙের শাড়ী, মাথায় ঘোমটা দিয়ে মহিষের গাড়িতে যাচ্ছে। কেউ বাঁশির সুরে সুরে গাইছে, কেউবা ঢোলের তালে তালে নাচছে। মাঝে মাঝে ঘোমটাখানি একটু খুলে উঁকি দিচ্ছে নতুন বউ।
বিশেষ করে বিশ^বিদ্যালয়ের টুকিটাকি চত্বর, ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ কলাভবন চত্বর, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কলাভবনের সামনে, ইসমাইল হোসেন শিরাজী ভবনের সামনে ছিল চোখে পড়ার মতো। বিশেষ করে শিরাজী ভবনের সামনে বিশ^বিদ্যালয়ের ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের আয়োজনে পুতুল নাচ উৎসব ছিল এবারের সবচেয়ে ভিন্ন আয়োজন।

প্রতিবছরের ন্যায় এবারো চারুকলা অনুষদকে ঘিরে মূল উৎসব শুরু হয়। ‘মস্তক তুলিতে দাও অনন্ত আকাশে’ এই শ্লোগানকে নিয়ে বেলা সাড়ে ১১টায় বিশ^বিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ থেকে মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাতে প্রধান মোটিফ লোকজ ঘোড়াসহ ময়ূর, হাতি নিয়ে ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ হয়। তবে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা থাকায় মঙ্গল শোভাযাত্রায় কোন ধরনের মুখোশ পরা ও ভুভুজেলা বাঁশি দেখা যায়নি। শোভাযাত্রায় বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনন্দ কুমার সাহা ও চৌধুরী মো. জাকারিয়া, প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমানসহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শোভাযাত্রার পর বিশ^বিদ্যালয়ের শহীদ সুখরঞ্জন ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র (টিএসসিসি) আয়োজিত একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। সেখানে বক্তব্য দেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনন্দ কুমার সাহা ও চৌধুরী মো. জাকারিয়া।

নববর্ষের আমেজের বিষয়ে ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থী সাবরিন সুলতানা বলেন, নববর্ষকে বরণ করতে ক্যাম্পাসে আমেজ বিরাজ করছে। একেক জনের একেক রকম অভিনয়, গান শুনে ভালোই লাগছে। তবে এবারের আয়োজনটা প্রতিবছরের ন্যায় সেভাবে হয়নি।

এদিকে প্রশাসনের নির্দেশনা অনুযায়ী ক্যাম্পাসের সকল অনুষ্ঠান সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে শেষ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বর্ষবরণে ক্যাম্পাসের নিরাপত্তা পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চাইলে বিশ^বিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান বলেন, বর্ষবরণ উপলক্ষে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর অবস্থানে রয়েছে। সার্বিক নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে অনুষ্ঠান শেষ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

SRM Institutes of Science and Technology Ad Space India Education Fair 2018, Dhaka
আর্কাইভ
April 2019
SunMonTueWedThuFriSat
1

2

3

4

5

6

7

8

9

10

11

12

13

14

15

16

17

18

19

20

21

22

23

24

25

26

27

28

29

30

AIMS Institutes

প্রকাশক

বিপ্লব চন্দ্র চক্রবর্তী

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক

রবিউল ইসলাম তুষার

আমাদের সাথে থাকুন
© Copyright 2017. GEE BD. Designed and Developed by GEE IT