রবিবার ২১ অক্টোবর ২০১৮   |  ৬ কার্তিক ১৪২৫   |   ৯ সফর, ১৪৪০
Untitled Document

আইসিটির ব্যবহারিক পরীক্ষায় টাকা আদায়ের অভিযোগ

প্রকাশঃ রবিবার, ২৭ মে ২০১৮    ১৮:০১
ডেস্ক নিউজ

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া শেখ লুৎফর রহমান আদর্শ সরকারি কলেজে এইচএসসির আইসিটির ব্যবহারিক পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে ৩শ’ টাকা করে আদায়ের অভিযোগ উঠেছে।  যেসব পরীক্ষর্থী টাকা দিয়েছে তাদের নাম্বার  বাড়িয়ে ও টাকা না দেয়া শিক্ষার্থীদের নাম্বার কমিয়ে দেয়ার হবে বলে আশঙ্কা করছে শিক্ষার্থীরা।

কলেজ সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর ওই কলেজ থেকে ৬৯০ জন শিক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করেন। আইসিটি প্রত্যেক বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য বাধ্যতামূলক। তাই প্রত্যেক শিক্ষার্থী এ বিষয়ের লিখিত ও ব্যবহারিক পরীক্ষায় অংশ নেয়। গত ১৫ মে ওই কলেজে আইসিটির ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শেখ লুৎফর রহমান আদর্শ সরকারি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী হামিদুর রহমান বলেন, আমি আইসিটির ব্যবহারিক পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করে ৩শ’ টাকা দিয়েছি। আমাদের সহপাঠীরা এ পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ৩শ’ টাকা করে দিয়েছে। ৩শ’ টাকার কম দিলে ব্যবহারিক পরীক্ষায় ১৫/১৬ নম্বর দেয়া হবে বলে জানান দেয়া হয়। ৩শ’ টাকা দিলে ২৪ নম্বর দেয়া হবে বলে প্রচার করা হয়। তাই ৩ শ’ টাকা দিয়েছি। কত নম্বর দিয়েছে তা আমি জানতে পারিনি।

ওই কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী রাসেল হাওলাদার বলে,  পরীক্ষার্থীদের নামের তালিকা করে পাশে টাকার অংক লেখা হয়েছে।  কোন কোন পরীক্ষার্থী ২ শ’ টাকাও দিয়েছে। আমি ৩ শ’ টাকা দিয়েছি। পরে শিক্ষকরা নামের পাশে নম্বর বসাবেন বলে জানা গেছে।

কোটালীপাড়া শেখ লুৎফর রহমান আদর্শ সরকারি কলেজে অধ্যক্ষ সর্বানন্দ বালা বলেন, শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিপত্রে আইসিটির ব্যবহারিক পরীক্ষায় টাকা আদায়ের কোন বিধান নেই। আমাদের কলেজে আইসিটির কোন শিক্ষক নেই।  আইসিটি প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত বিভিন্ন বিভাগের ৩ জন শিক্ষক দিয়ে এ বিভাগ চালানো হচ্ছে।  ব্যবহারিক পরীক্ষা নেয়ার জন্য সহকারী অধ্যাপক এফ এম সালাহউদ্দিন সহ ৩ শিক্ষকের নেতৃত্বে কমিটি গঠন করে দিয়েছি।  তারাই পরীক্ষা গ্রহণ করছেন।  টাকা আদায়ের ব্যাপারে কমিটির সদস্যরাই ভালো বলতে পারবেন। বিষয়টি আমার জানা নেই।

আইসিটি বিভাগের দায়িত্বে থাকা সহকারী অধ্যাপক এফ এম সালাহউদ্দিন টাকা আদায়ের কথা অস্বীকার করে বলেন, ব্যবহারিক পরীক্ষায় অংশগ্রহনকারীরা আমাদের কোন টাকা দেয়নি।  কলেজের এমএলএসএস সহ তৃতীয়, চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীরা শিক্ষার্থীদের ব্যবহারিক পরীক্ষায় সহায়তা করেছে। তাই শিক্ষার্থীরা খুশি হয়ে তাদেরকে কিছু টাকা দিয়েছে। আমরা তাদের কাছ থেকে কোন টাকা আদায় করিনি।  শিক্ষার্থীদের অভিযোগ মিথ্যা বলে দাবি করেন তিনি।

জিবিডি/আরআইটি

SRM Institutes of Science and Technology Ad Space India Education Fair 2018, Dhaka
আর্কাইভ
October 2018
SunMonTueWedThuFriSat
1

2

3

4

5

6

7

8

9

10

11

12

13

14

15

16

17

18

19

20

21

22

23

24

25

26

27

28

29

30

31

AIMS Institutes

প্রকাশক

বিপ্লব চন্দ্র চক্রবর্তী

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক

রবিউল ইসলাম তুষার

আমাদের সাথে থাকুন
© Copyright 2017. GEE BD. Designed and Developed by GEE IT