বুধবার ২১ নভেম্বর ২০১৮   |  ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫   |   ১১ রবিউল আউয়াল, ১৪৪০
Untitled Document

রাবির ভর্তি পরীক্ষা: জালিয়াতি রোধে সজাগ প্রশাসন

প্রকাশঃ শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮    ০০:৪০
রাবি প্রতিবেদক

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি জালিয়াতি রোধে সজাগ রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। একটি জালিয়াতি চক্রের সূত্র আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে দিয়েছে এবং সেই চক্র ধরে আইনশৃঙ্খলা ও গোয়েন্দা বাহিনী কাজ করছে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এছাড়া পরীক্ষার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে আসন্ন ভর্তি পরীক্ষাকে সামনে রেখে এক সংবাদ সম্মেলনে চিহ্নিত চক্রে কারা জড়িত, সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোহবান।

তিনি বলেন, “জালিয়াত চক্রের কথা শোনা যাচ্ছে, কোন জায়গা থেকে তারা তৎপরতা করছে, কোথা থেকে আসছে, কতো জন এর মধ্যে জড়িত, তাদের নামগুলো পেয়ে গেছি। আমরা সংগঠন নিয়ে কিছু বলতে চাই না।  তারা (জালিয়াত চক্র) বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান ছাত্রও আছে, পাস করে গেছে এমন ছাত্রও আছে। আমরা এটা যে সূত্র থেকে পেয়েছি, তা যাচাই করার জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে দিয়েছি। আশা করছি, তারা এটা নিয়ে কাজ করছে।”  

তবে তারা যে সংগঠন হোক বা যারাই এতে তৎপর থাকুক না কেনো, তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।
প্রশ্নফাঁস নিয়ে তিনি বলেন, “আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশ্নফাঁসের কোনো রেকর্ড নেই। তবে আমরা মনে করি, প্রশ্নফাঁস হওয়ার প্রথম সূত্র হলো যারা এর সঙ্গে জড়িত থাকেন। প্রশ্ন প্রণয়ন বা এর মডারেশনের সঙ্গে যারা থাকেন। তবে আমার বিশ্বাস এর সঙ্গে যারা আছেন, তারা অতীতেও এ কাজ করেননি, এখনও করবেন না।”

এর আগে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রভাষ কুমার কর্মকার বলেন, এ বছর পাঁচটি ইউনিটের আওতায় ৫৯টি বিভাগে ৪ হাজার সাতশত আসনে বিপরীতে ১ লক্ষ ৪৭ হাজার ৫০টি প্রবেশপত্র সংগ্রহ করেছে শিক্ষার্থীরা। এর মধ্যে ‘এ’ ইউনিটে ৩০ হাজার ছয়শত ৫২, ‘বি’ ইউনিটে ২৪ হাজার আটশত ৩, ‘সি’ ইউনিটে ৩১ হাজার ৯টি, ‘ডি’ ইউনিটে ৩০ হাজার আটশত ৯০টি ও ‘ই’ ইউনিটে ৩০ হাজার তিনশত ৯৬টি।  তবে পাঁচটি ইউনিটে মোট ৮৮ হাজার পাঁচশত ৪৩ জন ভর্তিচ্ছু অংশ নিবে।

জালিয়াত বা প্রতারকচক্রের বিষয়ে ভর্তিচ্ছু ও অভিভাবকদের সতর্ক করে অধ্যাপক প্রভাষ লিখিত বক্তব্যে বলেন, ‘কখনও কখনও অসাধুচক্র ভর্তিচ্ছু কিংবা অভিভাবকদের নিকট থেকে ভর্তির সুযোগ করে দেওয়ার মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে টাকা-পয়সা নিয়ে থাকে। এজন্য তারা কখনও কখনও ছাত্র-ছাত্রীদের (এসএসসি ও এইচএসসি) ও অন্যান্য অত্যাবশ্যকীয় কাগজপত্র জমা রাখে এবং রেজাল্ট শিটে নাম দেখেই তারা টাকা দাবি করে।  প্রকৃতপক্ষে শিক্ষার্থীরা নিজ যোগ্যতায় ভর্তির সুযোগ পেয়েও প্রতারণার শিকার হয়।  রাবির ভর্তি প্রক্রিয়া অত্যন্ত স্বচ্ছ ও গোপনীয়।  এখানে কোনো ধরনের জালিয়াতি বা কারসাজির সুযোগ নেই।  এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সজাগ আছে বলে জানান তিনি।

কোনো ধরনের জালিয়াতি, কারসাজি বা অশুভ তৎপরতা সংক্রান্ত কোনো নির্ভরযোগ্য তথ্য পেলে প্রক্টর দপ্তরকে অবহিত করার জন্য আহ্বান জানান তিনি।

এদিকে ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সার্বিকভাবে সচেষ্ট রয়েছে। সেখানে কোন ধরণের জালিয়াতি করার সুযোগ নেই উল্লেখ করে প্রশাসন কয়েকটি পদক্ষেপ নিয়েছে।  তা হলো- অসাধু চক্রের সদস্যদের তাৎক্ষনিক শাস্তি বিধানে ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত, পরীক্ষা চলাকালীন মেডিকেল টিম, ক্যাম্পাসে বিশেষ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা চালু রাখা।এছাড়া ভর্তিপরীক্ষা চলাকালীন অসাধু চক্রের সদস্যদের তাৎক্ষণিক শাস্তি দেওয়ার জন্য ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে একটি ভ্রাম্যমাণ আদালত দায়িত্ব পালন করবেন বলে অধ্যাপক প্রভাষ লিখিত বক্তব্যে সাংবাদিকদের জানান।

এদিকে ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয়ের আশে-পাশে বিভিন্ন মেস মালিক ভর্তিচ্ছু থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে। সে বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর  বলেন, মেস মালিক সমিতি এবং মতিহার থানার (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তার সাথে বসে আলোচন হয়েছে। তারা এবার ভর্তিচ্ছু থেকে কোন প্রকার টাকা আদায় করবে না। যদি কেউ করে তবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

এ বছরের ৩ সেপ্টেম্বর থেকে ১২ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়টিতে অনলাইনে প্রাথমিক আবেদন পড়ে প্রায় ৩ লাখ। পরে এইচএসসি ফলাফলের ভিত্তিতে প্রতি ইউনিটে ৩২ হাজার শিক্ষার্থীর নাম প্রকাশ করে প্রশাসন। আগামী ২২ ও ২৩ অক্টোবর পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি পরীক্ষা ১ ঘন্টা করে দিনে ৫ টি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। দুই দিনে মোট ১০টি শিফটে এই ভর্তি পরীক্ষা হবে। ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের http://admission.ru.ac.bd/ থেকে পাওয়া যাবে।
জিবিডি/আরআইটি

SRM Institutes of Science and Technology Ad Space India Education Fair 2018, Dhaka
আর্কাইভ
November 2018
SunMonTueWedThuFriSat
1

2

3

4

5

6

7

8

9

10

11

12

13

14

15

16

17

18

19

20

21

22

23

24

25

26

27

28

29

30

AIMS Institutes

প্রকাশক

বিপ্লব চন্দ্র চক্রবর্তী

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক

রবিউল ইসলাম তুষার

আমাদের সাথে থাকুন
© Copyright 2017. GEE BD. Designed and Developed by GEE IT